সাধারন ভোগ নয়! কলকাতার এই কালীমন্দিরের মা কে ভোগ দেওয়া হয় চাউমিন!!

0
kolkata chaina kalibarii

ভারতের বিভিন্ন জায়গায় নানান রকমের মন্দির রয়েছে আর সেইসব মন্দিরের এক একটা জায়গায় এক এক রকমের ভোগ নিবেদন করা হয় ঠাকুরের উদ্দেশ্যে। কোথাও ভোগের প্রসাদ হিসেবে নিবেদন করা হয় খিচুড়ি কোথাও বা পরমান্ন কোথাও আবার চকলেট। কিন্তু ভারতের মধ্যে এমন একটি মন্দির আছে যেখানে ভোগের প্রসাদ হিসেবে দেবীকে চাউমিন খেতে দেওয়া হয়। অবাক হচ্ছেন তো কিন্তু এটাই আসলে সত্যি।

kolkata chaina kalibari

কলকাতার মধ্যে একটি অংশ চায়না টাউন নামে পরিচিত, সেখানেই রয়েছে এক মা কালীর মন্দির আর সেই মন্দিরেই দেবীর প্রসাদ হয় চাউমিন‌‌। কলকাতার ট্যাংরাতে অবস্থিত রয়েছে একটি চিনা পাড়া আর সেখানেই রয়েছে চাইনিজ কালী মন্দির।‌ এই মন্দিরের সবথেকে আকর্ষনীয় হলো এই মন্দিরের প্রসাদ। এখানে দেবীকে প্রসাদে চাউমিন, স্টিকি রাইস ও সবজি দেওয়া হয়।

kolkata chaina kalibari

১৮০০ দশক থেকে যখন কলকাতায় চিনাদের আসা-যাওয়ার শুরু হয়, তখনই ট্যাংরা তপসিয়া অঞ্চলে চিনাদের বসতি গড়ে উঠতে শুরু করে। ইন্দোচিন যুদ্ধের পর থেকে চামড়ার শিল্প শুরু হয়ে গিয়েছিল,১৯৮৭ সালে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে তারপর তা বন্ধ হয়ে গেলে অনেকেই দেশে ফিরে যান কিন্তু কিছু চিনা মানুষ চিন দেশে ফিরে যাননি, তারা এই দেশেই থেকে গিয়েছিলেন, তৈরি করেছিলেন রেস্তোরাঁ।

kolkata chaina kalibari

এরপর বাঙালি সংস্কৃতির সাথে মিশে গিয়েছিলেন তারা। আর বাঙালি আর চাইনা সংস্কৃতির মিশেল রূপে গড়ে উঠেছিল কালী মন্দির। চাইনা এই মন্দিরে নিযুক্ত আছেন এক বাঙালি পুরোহিত।

দীপাবলিতে এই মন্দিরে চাইনিজ ধুপকাঠি জ্বালানো হয় লাইন দিয়ে আর এই মন্দিরে প্রসাদ হিসেবে ভগবানকে দেওয়া হয় চাউমিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here