আগামী ২০-৩০ বছরের মধ্যেই কলকাতায় হবে তুষারপাত?? কি বলছেন আবহাওয়াবিদরা…

0
Kolkata snowfall
Kolkata snowfall

এই বছর দার্জিলিং এবং সান্দাকফুতে তুষারপাত বেড়েছে। দার্জিলিংয়ে বরফ দেখে এমনিতেই আনন্দে আত্মহারা বাঙালি। কিন্তু তুষারপাত যদি শহর কলকাতায় হয়, তবে কেমন হয়? মনে হবে এ আবার সম্ভব নাকি? শুধু গল্পকথা বা সিনেমার পর্দায় কলকাতায় বরফ দেখানো যেতে পারে। তা বলে বাস্তবে? অধিকাংশই বলবে কোনওদিন সম্ভব নয়। কিন্তু এমনটা সম্ভব।

Darjeeling-snow-

১৩০ কোটি বছর আগে সম্ভব ছিল, আর আজ থেকে বছর ২০ পরেও সম্ভব! এমনটাই জানাচ্ছেন ভূতত্ত্ববিদরা।ভবিষ্যতেও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটতে পারে। ক্লাইমেটিক সিস্টেমটা ধীরে ধীরে ক্লোজ সিস্টেমের দিকে এগোচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের যে পদ্ধতি দীর্ঘদিন ধরেই চলছিল, তা শেষ হতে চলেছে। এতে বাস্তুতন্ত্র সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

বাংলায় সমুদ্র তাপমাত্রার ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। এই মুহূর্তে যে হারে জলবায়ু পরিবর্তিত হচ্ছে তাতে খুব শীঘ্রই হিমায়নের সূচনা হবে।’ আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, নতুন বছরের শুরুতে শীত অনুভূত হবে আবারও। সুজীব কর বলেন, ‘বৃহস্পতিবার থেকে দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু জায়গায় বৃষ্টিপাত হবে। বুধবারও বেশ কিছু জায়গায় বৃষ্টিপাত হয়েছে। ধীরে ধীরে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা পূর্ব দিকে সরে আসছে। উত্তরপূর্ব দিকে স্থানান্তরিত হবে তা।’

মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা জানাচ্ছে যে সোলার মিনিমাম-এর কারণে ২০২০ সাল থেকে কমতে শুরু করবে সূর্যের তাপমাত্রা। প্রতি ২০০ বছর পর পর এমন অবস্থা হয়ে থাকে। নাসার গবেষকেরা জানাচ্ছ যে প্রতি ২০০ বছর অন্তর সূর্য নিজের সর্বাপেক্ষা কম তাপমাত্রায় পৌঁছায়। যা ২০২০ সালে হতে চলেছে। বিষয়টি স্থায়িত্বকাল প্রায় ৩০ বছর। এই সময়ে পৃথিবী সহ সমগ্র সৌরজগতের তাপমাত্রা অনেকটাই কমে যায়।

ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে, ১৩০ বছর আগে প্রায় গোটা ভারত বরফে ঢেকে গিয়েছিল। দক্ষিণের কিছু রাজ্য বাদে প্রায় সব রাজ্যে তুষারপাত স্বাভাবিক ঘটনা ছিল। কলকাতা তথা বাংলাতেও বরফ পড়ত নিয়ম করে। সেই অতীত এবার ফিরে আসার পালা ,সব মিলিয়ে এখন অপেক্ষা গোটা রাজ্যে কবে বরফের চাদর দেখা যাবে। তবে এর জন্য তাকিয়ে থাকতে হবে ২০৪১ সালের দিকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here