‘চা খেতে চলে আসুন’ নিমন্ত্রণ জানালেন ভাইরাল চা কাকু! কোথায় তার দোকান জানেন??

0
1553
চা কাকু

“আমরা চা খাবো না? খাবো না আমরা চা?” লকডাউনের একদম আদিপর্বে ভাইরাল ভিডিওতে উঠে আসা এই লাইনটি মনে আছে নিশ্চয়ই। তখনও করোনা সম্পর্কে এতটা ধারণা ছিলনা মানুষজনের। এই ভাইরাস যে এত বেশি ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে তা হয়তো ভাবতে পারেননি অনেকেই। সেই সময় কার্ফু উপেক্ষা করে রাস্তায় চা খেতে বেরিয়েছিলেন দুই ব্যক্তি।

তার এই সরল মনের আর্জি রীতিমতো মন ছুঁয়ে যায় সকলের। এরপরে ফের ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে সামনে আসে তার আসল পরিচয়। চা কাকু নামে পরিচিত এই মৃদুল দেব, আসলে একজন ঠিকা শ্রমিক।লকডাউনে তার কাজ চলে যায়। এরপর অবশ্য মৃদুলবাবুর জন্য সমব্যথী হয়ে পড়ে সকলেই। এমনকি সৌরভ গাঙ্গুলী পর্যন্ত ছুটে আসেন তাকে সাহায্য করতে। সমাজের এই ঋণ অবশ্য সুদে-আসলে পুষিয়ে দিয়েছেন মৃদুলবাবুও। প্রথম ঢেউ থেকে দ্বিতীয় ঢেউ কোভিডে সব সময় ভলেন্টিয়ার হিসেবে কাজ করেছেন তিনি।

গত বছর কড়া লকডাউনের শুরুর দিকে বিধি নিষেধ না মেনে পাড়ার মোড়ের চায়ের দোকানে চা খেতে গিয়েছিলেন মৃদুল। সেখানেই এক সাংবাদিকের ক্যামেরার সামনে পড়ে,  কিছুটা হতবাক হয়ে সাংবাদিকের কাছে জানতে চেয়েছিলেন, ‘চা খাবো না আমরা, খাবো না চা আমরা!’   সেই ভিডিও ফেসবুকে আপলোড হতেই হই হই করে ছড়িয়ে পড়ে নেটপাড়ায়। সেকেন্ডের মধ্যেই তুমুল শেয়ার হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ার তারকা হয়ে যান মৃদুলবাবু।

 

নতুন দোকান খোলা নিয়ে বলতে গিয়ে সংবাদমাধ্যমে চা কাকু জানিয়েছেন, ‘কিছুটা একটা করতে হবে। বাবার বয়স হয়েছে। তাই চা দোকান খুলে ফেললাম।’   তাঁর কথায়, “এই ভিডিওর ব্যাপারটা বুঝি না। সংসারের হাল ফেরাতে পারলেই হল।” মৃদুলের আশা, “এই করোনা পুরোপুরি দূর হলে চায়ের দোকান রমরম করে চলবে!” যাদবপুর এলাকাতেই চা কাকুর এই চায়ের দোকান। বিজয়গড়  কলেজের সামনে থেকে কলোনী বাজারে গিয়ে   চা কাকুর কথা বললে যে কেউ আপনাকে দেখিয়ে দেবেন।  তার এই নতুন চায়ের দোকানের শুভ উদ্ভোদন এর পর থেকে রীতিমতো বন্যা বয়ে যাচ্ছে তার প্রতি শুভেচ্ছার।

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here